শেষ বলে হোয়াইটওয়াশ বাংলাদেশ

0
21

আকাশ দাশ/ক্রীড়া প্রতিবেদকঃ সফরকারী পাকিস্তানের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের তৃতীয় এবং শেষ ম্যাচে ৫ উইকেটে হেরে হোয়াইটওয়াশ হলো বাংলাদেশ।

তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে স্বাগতিক বাংলাদেশের দেওয়া ১০৯ রানের ছোট লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে দলীয় ১২ রানের মাথায় মোস্তাফিজুর রহমানের শিকার হয়ে ফিরেন পাকিস্তানি অধিনায়ক বাবর আজম। বাবরের বিদায়ে তিনে ব্যাট করতে নাম ফখর জামানকে সঙ্গী করে দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ৮৫ রান তোলেন অন্য ওপেনার মোহাম্মদ রিজওয়ান। তবে ব্যক্তিগত ৩৯ রানের মাথায় বিপ্লবের শিকার হয়ে রিজওয়ান ফিরলে ভাঙে পাকিস্তানের ভয়ঙ্কর এই জুটি। তবে রিজওয়ান ফিরলেও হায়দার আলিকে নিয়ে নিজেদের জয় নিশ্চিত করে ৫১ বলে ২ চার ৩ ছয়ে ৫৭ রানে অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়ে ফখর।

আজ মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সফরকারী পাকিস্তানের বিপক্ষে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি স্বাগতিক বাংলাদেশের। দলীয় ৭ রানের মাথায় ওপেনার নাজমুল হোসেন শান্তকে হারায় তারা। শান্তর বিদায়ে প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তিনে ব্যাট করতে নেমে অন্য ওপেনার নাইম শেখকে সঙ্গী করে প্রতিরোধ গড়তে চেয়েছিলো শামীম হোসেন। তবে পাকিস্তানি লেগী উসমান কাদিরের শিকার হয়ে ব্যক্তিগত ২২ রানে শামীম ফিরলে ভাঙে বাংলাদেশের দ্বিতীয় উইকেটে ৩০ রানের ছোট জুটি। শামীমের বিদায়ে চারে ব্যাট করতে নামা আফিফ হোসেনকে সঙ্গী করে ছোট আরেকটি জুটি গড়েন নাইম। তবে ব্যক্তিগত ২০ রানে উসমান কাদিরের দ্বিতীয় শিকার হয়ে আফিফ ফিরলে ভাঙে তৃতীয় উইকেটের ৪০ রানের জুটি।

সঙ্গীকে হারিয়ে বেশিদূর এগোতে পারেনি নাইম শেখ ৫০ বলে ২টি করে চার-ছয়ে ৪৭ রানে ফিরেন তিনি। দলের এমন অবস্থায় শেষদিকে ব্যাটসম্যানদের ব্যাটিং ব্যর্থতায় নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৭ উইকেট হারিয়ে মাত্র ১২৪ রানে আটকে যায় বাংলাদেশের ইনিংস। পাকিস্তানের হয়ে মোহাম্মদ ওয়াসিম জুনিয়র এবং উসমান কাদির নেন ২টি করে উইকেট। একটি করে উইকেট নেন ধানি এবং হ্যারিস রউফ।

বাংলাদেশের দেওয়া ছোট লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে দুই ওপেনারের ব্যাটে দারুণ সূচনা পায় পাকিস্তান। তবে ব্যক্তিগত ১৬ রানের মাথায় ওপেনার বাবর আজমকে ফিরিয়ে পাকিস্তানের ৩২ রানের উদ্বোধনী জুটি ভাঙেন আমিনুল ইসলাম বিপ্লব। বাবর ফিরলে তিনে ব্যাট করতে আসা হায়দার আলিকে সঙ্গী করে ৫১ রানের জুটি গড়েন অন্য ওপেনার মোহাম্মদ রিজওয়ান। ব্যক্তিগত ৪০ রানের মাথায় রিজওয়ানকে ফিরিয়ে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে প্রথম উইকেটের পাশাপাশি পাকিস্তানের দ্বিতীয় উইকেটের জুটি আর বড় হতে দেননি বাংলাদেশী অভিষিক্ত পেসার শহিদুল ইসলাম।

দলের এমন অবস্থায় অভিজ্ঞ সারফরাজ আহমেদকে সঙ্গী করে দলের জয়ের চাকা সচল রাখতে চেয়েছিলো হায়দার। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের করা ম্যাচের শেষ ওভারের নাটকীয়তায় ৩৮ বলে ৩চার এবং ২ ছক্কায় দলীয় সর্বোচ্চ ৪৫ রান করে ফিরেন হায়দার। তবে শেষ ম্যাচের শেষ বলে ৪ হাঁকিয়ে পাকিস্তানের জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়েন মোহাম্মদ নেওয়াজ। বাংলাদেশের হয়ে মাহমুদউল্লাহ নেন ৩টি উইকেট একটি করে উইকেট নেন আমিনুল ইসলাম বিপ্লব এবং শহিদুল ইসলাম।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here