ন্যাশনাল ব্লাড ট্রান্সফিউশন মরিশাস-এর আয়োজনে স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচী

ন্যাশনাল ব্লাড ট্রান্সফিউশন মরিশাস-এর আয়োজনে স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচী
ন্যাশনাল ব্লাড ট্রান্সফিউশন মরিশাস-এর আয়োজনে স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচী
ঢাকা ০৯ নভেম্বর, ২০২১ :
মুজিববর্ষ এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষ্যে ন্যাশনাল ব্লাড ট্রান্সফিউশন মরিশাস-এর সহায়তায় রবিবার বাংলাদেশ হাইকমিশন, পোর্ট লুইস, মরিশাস এক স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচীর আয়োজন করে।
ইউনোস্কোর ওয়ালর্ড হেরিটেজ সাইট আপ্রাভাসি ঘাট, পোর্ট লুইসে সকাল ৯ ঘটিকা হতে দুপুর ১ ঘটিকা পর্যন্ত মরিশাসের জাতীয় ব্লাড ট্রান্সফিউশন সার্ভিস রক্ত সংগ্রহ করে।
মান্যবর হাইকমিশনার মিজ রেজিনা আহমেদ প্রথমেই হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-কে গভীর শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন ও তাঁর পরিবারের সকল শহীদের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন। সেই সাথে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা এবং মুক্তিযুদ্ধে সম্ভ্রম হারানো দুই লক্ষ মা-বোনদেরকেও গভীরভাবে স্মরণ করেন।
তিনি স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচীতে অংশগ্রহণকারী প্রবাসী বাংলাদেশীদেরকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন যে, রক্তের কোন বিকল্প নেই এবং এটি প্রবাসী বাংলাদেশী রক্তদাতাদের পক্ষ থেকে মরিশাসের জনগণের প্রতি বিশেষ উপহার। তিনি আরো বলেন যে, আমাদের এ ধরনের উদ্যোগ অব্যাহত থাকবে এবং এ ধরনের মানবিক কাজে সবসময় আপনাদের সহযোগিতা আশা করছি।
মরিশাসের এ জে জিটু হাসপাতালের আঞ্চলিক স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. রামপাতি বলেন যে, বাংলাদেশ হাইকমিশন কর্তৃক আয়োজিত আজকের এ রক্তদান কর্মসূচী এক অনন্য উদাহরণ। প্রবাসী বাংলাদেশীরা আমাদের পরিবারের অংশ এবং আর্ত-মানবতার সেবায় তাঁদের স্বত:স্ফূর্ত অংশগ্রহণ সবার জন্য অনুকরণীয়। তিনি বাংলাদেশ হাইকমিশন কর্তৃক আয়োজিত এই মানবিক কর্মসূচীর ভূয়শী প্রশংসা করেন এবং তিনি নিজেও রক্তদান করেন।
উক্ত কর্মসূচীতে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক প্রবাসী বাংলাদেশী এবং বাংলাদেশ দূতাবাসের এর কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ স্বেচ্ছায় স্বত:স্ফুর্তভাবে রক্তদান করেন। মুজিববর্ষ এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে মরিশাসস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের এই মহতী উদ্যোগ স্থানীয় জনগণ এবং প্রবাসী বাংলাদেশীদের ভূয়শী প্রশংসা অর্জন করে।
স্বাগতিক দেশের কোভিড-১৯ স্বাস্থ্য প্রটোকল এবং যথাযথ সামাজিক দূরত্ব অনুসরণপূর্বক অনুষ্ঠানটি সম্পন্ন করা হয়। মান্যবর হাইকমিশনার মিজ রেজিনা আহমেদ-সহ উপস্থিত অতিথিবৃন্দ রক্তদান করেন। অনুষ্ঠানে 58 ব্যাগ রক্ত সংগ্রহ করা হয়। প্রবাসী বাংলাদেশী ছাড়াও স্থানীয় জনগণ স্বত:স্ফূর্তভাবে উক্ত কর্মসূচীতে অংশগ্রহণ করেন এবং রক্তদান করেন।

সর্বশেষ