মনোহরদী চন্দনবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থী যারা

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নরসিংদী জেলাধীন মনোহরদী উপজেলার চন্দনবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান পদপ্রাথীরা ব্যাপক জনসংযোগ ও প্রচারনা শুরু করেছে। তফসীল ঘোষনা না হলেও ইতিমধ্যেই প্রার্থীরা নানাভাবে শোডাউন করে ভোটারদের দৃষ্টি আকর্ষণ করার পাশাপাশি মনোনয়ন প্রাপ্তির শক্তি পরীক্ষা দিচ্ছে।

উল্লেখযোগ্য প্রাথীদের মধ্যে সাবেক দুইবারের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ এর সাবেক দুইবারের সভাপতি মোসলেহ উদ্দিন আবু মাষ্টারের ছেলে থানা আওয়ামীলীগের কাযনির্বাহী সদস্য আবুল কালাম আজাদ ফরিদ সাধারন জনগন ও তৃণমূল নেতাকর্মীদের পছন্দের শীর্ষে রয়েছেন বলে জানা যায়। সম্প্রতি ফরিদের সমর্থনে বিশাল শোডাউন করে যা চন্দনবাড়ীর জন্য নজিরবিহীন ঘটনা বলে জনমনে প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা মো. সুরুজ মিয়া জানান চন্দনবাড়ী ইউনিয়নবাসী অত্যান্ত শান্তিপ্রিয়। এখানে জনগন অত্যন্ত সচেতন ও শিক্ষিত। সে বিবেচনায় সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম আবু মাস্টারের ছেলে ফরিদ ভাই শিক্ষিত, নম্র, ভদ্র ও আওয়ামীলীগের জন্য নিবেদিত প্রান।তিনি চেয়ারম্যান হলে উন্নয়ন কর্মকান্ডে কোনো দূর্নিতি কিংবা স্বজনপ্রীতির সম্ভাবনা থাকবেনা।

চন্দনবাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ এর সাবেক সাধারন সম্পাদক ও বর্তমান ইউনিয়ন কমিটির কার্যনির্বাহী সদস্য নুরুল ইসলাম বলেন এলাকা এখন মাদক এবং সুদ ব্যবসায় সয়লাভ।আবুল কালাম আজাদ ফরিদ চেয়ারম্যান হলে জননেত্রী শেখ হাসিনার মাদকমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে সহায়ক হবে।

চন্দনবাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ এর সাবেক সভাপতি ও বর্তমান ইউনিয়ন কমিটির কার্যনির্বাহী সদস্য মিশু মেম্বার বলেন ইউনিয়নবাসী এখন সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজীর আতংকে রয়েছে। আবুল কালাম আজাদ ফরিদ চেয়ারম্যান হলে সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজীর হাত থেকে ইউনিয়নবাসী রেহাই পাবে।

এদিকে বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ হিরণ, চন্দনবাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ এর সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন বাদল মনোনয়ন প্রাপ্তির প্রতিযোগীতায় রয়েছেন।

আব্দুর রউফ হিরণ চেয়ারম্যান হিসেবে নানা অভিযোগে অভিযুক্ত। লাখপুর মাদ্রাসায় দূর্নীতি, চাকরী বাণিজ্য, উপজেলা নির্বাচনে নৌকার প্রার্থীর বিরুদ্ধে নির্বাচনে কাজ করা, বিএনপি জামায়াতকে মদদ দেয়া ও মাদক সন্ত্রাসকে প্রশ্রয় দেয়ার জন্য বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এর সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বরাবর অভিযোগ করেছেন চন্দনবাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সাধারন সম্পাদক সোহেল তালুকদার ও ইউনিয়ন কমিটির ৫৭ জন সদস্য।

এদিকে, নবাগত প্রার্থী হিসেবে মোফাজ্জল হোসেন বাদল চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ এর সভাপতি মো. সিদ্দিকুর রহমান দলের প্রবীন ও ত্যাগী নেতা হিসেবে পরিচিত হলেও তিনি প্রচার প্রচারনায় অনেকটা পিছিয়ে রয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here