জবি শিক্ষক সমিতির নির্বাচন, চলছে ভোট গ্রহণ

0
38

রিদুয়ান ইসলাম, জবি প্রতিনিধি: জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির (জবিশিস) কার্যনির্বাহী পরিষদ নির্বাচন-২০২২ এর ভোট গ্রহণ শুরু হয়েছে। বরাবরের মতো এবারও আওয়ামীপন্থি শিক্ষকদের সংগঠন নীল দল দুটি পূর্ণাঙ্গ প্যানেলে বিভক্ত হয়ে নির্বাচন করছে। তবে নির্বাচনে নেই বিএনপি ও জামায়াতপন্থি শিক্ষকদের সংগঠন সাদা দলের শিক্ষকরা।

সোমবার কেন্দ্রীয় অডিটোরিয়ামে সকাল ৯ টা থেকে ভোট গ্রহণ শুরু হয়। দুপুর ২ টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত ভোট গ্রহণ কার্যক্রম চলবে। মোট ১২ টি ব্যালট বুথে ভোটারদের ভোট গ্রহণ করা হচ্ছে। এরপর অপটিক্যাল মার্ক রিডার (ওএমআর) যন্ত্রের সাহায্য ভোট গণনা করা হবে।

নির্বাচনের দিন সকাল থেকেই শিক্ষকরা ক্যাম্পাসে আসতে শুরু করেন। এর পর পরই কেন্দ্রীয় অডিটোরিয়ামের সামনে ভিড় জমাতে থাকেন। এসময় শিক্ষক সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে ভোট প্রদানের জন্য অপেক্ষা করেন। এদিকে নির্বাচন শুরুর কিছু সময় পূর্বে অডিটোরিয়ামের কেন্দ্রীয় ফটকের সামনে পদপ্রার্থীরা শিক্ষকদের নমুনা ব্যালট বিলি করেন। এছাড়াও কেন্দ্র থেকে একটু দূরে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিউ একাডেমিক ভবনের সামনে ডেস্ক বসিয়ে ভোটার নাম্বার খুঁজতে সহায়তা করেন। এসময় একটি নির্বাচনী আমেজের সৃষ্টি হয়। নির্বাচন উপলক্ষে ক্যাম্পাসে উৎসবমুখর পরিবেশ তৈরি হয়।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সংগঠন জবিশিসের এবারের নির্বাচনে ভোট দিবেন ৬৮৪ জন শিক্ষক৷ পূর্ব নির্ধারণ সময় ও তারিখ অনুযায়ী ৮ নভেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত হচ্ছে শিক্ষক সমিতির নির্বাচন। সকাল ৯ টা থেকে দুপুর ২ টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে ৬টি পদে মোট ৩০ জন পদ প্রত্যাশী শিক্ষক লড়াই করছেন। এদের মধ্যে থেকে ১৫ জন নির্বাচিত হবেন। সদস্যপদে ১০ জন ও বাকি ৫ পদে একজন করে নির্বাচিত হবেন। নির্বাচনে সভাপতি, সহ-সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক, কোষাধ্যক্ষ নির্বাহী প্রতিটি পদের বিপরীতে দুই প্যানেল থেকে দুই জন পদপ্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। এছাড়াও প্রতিটি সদস্য পদের বিপরীতে ২ জন করে মোট ২০ জন শিক্ষক নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছেন।

এদিকে শিক্ষক সংগঠনের এই নির্বাচনে নীল দলের (আবুল হোসেন-কামাল হোসেন) প্যানেল থেকে সভাপতি পদে সমাজকর্ম বিভাগের অধ্যাপক মো. আবুল হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক পদে রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক ড. আবুল কালাম মো. লুৎফর রহমান নির্বাচন করছেন। নীল দলের (জাকারিয়া-মোস্তফা) প্যানেল থেকে সভাপতি পদে পরিসংখ্যান বিভাগের অধ্যাপক মো. আশরাফুল আলম ও সাধারণ সম্পাদক পদে সমাজকর্ম বিভাগের অধ্যাপক মো. আনোয়ার হোসেন নির্বাচন করছেন।

নির্বাচন ও ভোটগ্রহণের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে জবিশিস নির্বাচনের প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. সুরঞ্জন কুমার দাস বলেন, ভোট গ্রহণ শুরু হয়েছে। শিক্ষকরা শান্তিপূর্ণভাবেই ভোট দিচ্ছেন। বিএনসিসি এবং রোভার স্কাউট ভোটগ্রহণ চলাকালে শৃঙ্খলা রক্ষায় সহযোগিতা করছে।

সবশেষ ২০২০ সালের ২৮ জানুয়ারি শিক্ষক সমিতির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। গত বছর জানুয়ারিতে শিক্ষক সমিতির বর্তমান কমিটির মেয়াদ শেষ হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here