সাম্প্রদায়িক হামলা’র প্রতিবাদে জাককানইবি শিক্ষক সমিতির মানববন্ধন

মো মো ফাহাদ বিন সাঈদ, জাককানইবি প্রতিনিধি: সম্প্রতি ভারতে সংখ্যালঘু মুসলিমদের উপর সাম্প্রদায়িক হামলা, মসজিদ ও বাড়িঘরে লুটপাট , অগ্নিসংযোগ ও নির্যাতনের প্রতিবাদে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির (জাককানইবি) মানববন্ধন। ০৩ নভেম্বর (বুধবার) সকাল ১১ ঘটিকায় জয় বাংলা ভাষ্কর্যের সামনে এই মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয় । ” হোক প্রতিবাদ – সকল সাম্প্রদায়িকতা নিপাত যাক । সম্প্রীতির বার্তা ছড়িয়ে পড়ূক দেশ থেকে দেশান্তরে “- ইত্যাদি স্লোগানে প্রায় অর্ধশত শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা উক্ত কর্মসুচিতে সমবেত হন । ভারতে সংখ্যালঘুদের উপর উগ্ৰবাদী হামলার তীব্র নিন্দা ও নির্যাতিত মুসলিমদের প্রতি সহমর্মিতা জানান উপস্থিত বক্তারা । কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক প্রণব কুমার মন্ডল বলেন , প্রতিটি মানুষ, রাজনৈতিক দল, ধর্মীয় নেতা সকলেরই এই সাম্প্রদায়িক সহিংসতার বিরুদ্ধে দাঁড়ানো উচিত । প্রতিটি ব্যক্তিকে যার যার অবস্থান থেকে প্রতিবাদ করতে হবে । আমরা শান্তিপ্রিয় ।

ধর্মের নামে কোন উগ্ৰবাদ আমরা চাই না ‌। বিশ্ববিদ্যালয়ের মানব সম্পদ ব্যবস্থাপনা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আলভি রিয়াসাত মালিক বলেন , আমাদের বড় পরিচয় হচ্ছে আমরা মানুষ । ধর্ম , বর্ণ, জাতি, গোত্র নির্বিশেষে ‘মানুষ সত্য’ এই বিষয়টিই সবার আগে আসা উচিত । ব্যক্তিগতভাবে বিভিন্ন ধর্মকে আমরা গোষ্ঠীর পর্যায়ে ছুঁড়ে দিচ্ছি । এর ফলে মানুষে মানুষে বিভেদ-দ্বন্দ্ব ছড়িয়ে পড়ছে ‌। আমরা ভারতে সংখ্যালঘু মুসলিমদের উপর নির্যাতনের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি , তাদের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করছি । আশা করি ভারত সরকার এই বিষয়টি গুরুত্বের সাথে দেখবে ।

থিয়েটার এন্ড পারফরমেন্স স্টাডিজ বিভাগের বিভাগীয় প্রধান আল-জাবির তার বক্তব্যে বলেন, আজকের এই আয়োজন সকল ধর্মের মানুষকে শান্তির পথে নিয়ে এসে , একে অপরের সাথে হাতে হাত মিলিয়ে , সামাজিক দৃঢ়তার মধ্যে দিয়ে জাতিরাষ্ট্র গঠনের দিকে এগিয়ে যাওয়ার প্রত্যয় ‌। এই প্রত্যয়ের মধ্যে দিয়ে ভারত, মিয়ানমার, নেপাল, ফিলিস্তিনসহ বিশ্বের সব স্থানে ধর্মীয় উগ্ৰবাদী হামলার নিন্দা জানাই এবং জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি । মানববন্ধনে আরো বক্তব্য রাখেন জাককানইবি’র ছাত্র পরামর্শক ও উপদেষ্টা তপন কুমার সরকার, প্রক্টর ড. উজ্জল কুমার প্রধান, অগ্নিবীনা হলের প্রভোষ্ট নুরে আলম, শিক্ষক সমিতির সভাপতি রাশেদ সুখন, সাধারণ সম্পাদক মোঃ মাসুদ চৌধুরী, হিসাব বিজ্ঞান ও তথ্য পদ্ধতি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক প্রহল্লাদ চন্দ্র দাস এবং অন্যান্য শিক্ষকবৃন্দ । কর্মসুচি পরিচালনা ও সঞ্চালনায় ছিলেন সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান মোঃ রিয়াজুল ইসলাম ‌। উল্লেখ্য, ভারতের উত্তরপূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য ত্রিপুরা ও আসামে গত ২০ অক্টোবর মুসলিম সম্প্রদায়ের ওপর হামলা হয়েছে। রাজ্য দুটিতে চলা এই হামলায় অন্তত ৬টি মসজিদ এবং এক ডজনেরও বেশি বাড়িঘর-দোকানপাট ভাঙচুর করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here