Spread the love

আকাশ দাশ/ক্রীড়া প্রতিবেদক
সুনীল নারিনের ক্যামিওতে আইপিএলের এলিমিনিটর ম্যাচে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুকে ৪ উইকেটে হারিয়ে কোয়ালিফায়ের কলকাতা নাইট রাইডার্স।

গতকাল আইপিএলের চতুর্দশ আসরের এলিমিনিটর ম্যাচে কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিপক্ষে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে দুই ওপেনারের ব্যাটে দারুণ সূচনা পায় রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু। দলীয় ৪৯ রানের মাথায় ব্যক্তিগত ২১ রানে দেবদূত পাড্ডিকলকে ফিরিয়ে কলকাতাকে প্রথম সাফল্য এনে দেন কিউই পেসার লকি ফার্গুসন। তিনে ব্যাট করতে নেমে সুনীল নারিনের শিকার হয়ে শিখর ভারত ফিরেন ৯ রান করে। অনেক্ষণ একপ্রান্ত ধরে রেখে ব্যাট করতে থাকা ওপেনার ভিরাট কোহলি ফিরেন সুনীল নারিনের দ্বিতীয় শিকার হয়ে ৩৯ রান করে।

দলের এমন পরিস্থিতিতে ব্যাট হাতে জ্বলে উঠতে পারেনি দুই হার্ডহিটার এবিডি ভিলিয়ার্স এবং গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। ব্যক্তিগত ১১ রানে সুনীল নারিনের শিকার হয়ে ফিরেন এবিডি ভিলিয়ার্স। ভিলিয়ার্সের বিদায়ে ভুল শট খেলতে গিয়ে একই বোলারের শিকার হয়ে ম্যাক্সওয়েল ফিরেন ১৫ রানে। অন্যদিকে শেষের ব্যাটসম্যানদের কেউ ব্যাট হাতে ঝড় তুলতে না পারলে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৩৮ রানে থামে ব্যাঙ্গালুরুর ইনিংস। কলকাতার হয়ে সুনীল নারিন একাই শিকার করেন ৪টি উইকেট ২টি উইকেট শিকার করেন লকি ফার্গুসন।

ব্যাঙ্গালুরুর দেওয়া ছোট লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে দুই ওপেনারের ব্যাটে দারুণ শুরু করে কলকাতা। তবে ব্যক্তিগত ২৯ রানে শুভমান গিলকে ফিরিয়ে ৪১ রানের উদ্বোধনী জুটি ভাঙেন হার্শেল প্যাটেল। তিনে ব্যাট করতে নেমে এইদিন রাহুল ত্রিপাঠী ফিরেন ৯ রান করে। অনেক্ষণ একপ্রান্ত ধরে রেখে খেলতে থাকা অন্য ওপেনার ভেকটেশ্বর আইয়ার ফিরেন ২৬ রান করে।

দলের এমন পরিস্থিতে সুনীল নারিনকে সঙ্গী করে কলকাতাকে জয়ের পথে নিয়ে যেতে চাইছিলো নিতীশ রানা। তবে ব্যক্তিগত ২৩ রানে যুবেন্দ্র চাহালের দ্বিতীয় শিকার হয়ে ফিরতে হয় তাকে। নিজেদের ইনিংসের শেষিকে সুনীল নারিনের ২৬ রানের ক্যামিও আর সাকিব আল হাসানের ৯ রানের ইনিংসে জয় নিশ্চিত করে কলকাতা। ব্যাঙ্গালুরুর হয়ে হার্শেল প্যাটেল, যুবেন্দ্র চাহাল এবং মোহাম্মদ সিরাজ নেন ২টি করে উইকেট।