Spread the love

শেষ হলো ৩ দিনব্যাপী আয়োজিত আন্তর্জাতিক ব্লকচেইন অলিম্পিয়াড ২০২১: বাংলাদেশ প্রথমবারের মতো অর্জন করল সিলভার অ্যাওয়ার্ড

 

ঢাকা ১১ অক্টোবর ২০২১ :

 

সফলভাবে শেষ হলো ৩ দিনব্যাপী আয়োজিত ‘আন্তর্জাতিক ব্লকচেইন অলিম্পিয়াড ২০২১’। বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো অর্জন করল সিলভার অ্যাওয়ার্ড।

১০ অক্টোবর রাতে রাজধানী ঢাকার আগারগাঁওয়ের আইসিটি টাওয়ার-এর বিসিসি অডিটরিয়ামে-এর বর্ণাঢ্য সমাপনী এবং পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে অনলাইনে উপস্থিত ছিলেন বাণিজ্য মন্ত্রী টিপু মুনশি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্মেদ পলক।

ব্রোঞ্চ এবং সিলভার দুইটি ক্যাটাগরিতে বিজয়ী ১০টি দল  পেল ৪০ হাজার মার্কিন ডলারেরও বেশি মূল্যের পুরস্কার।

উক্ত অলিম্পিয়াডে বাংলাদেশ প্রথমবারের মতো সিলভার অ্যাওয়ার্ড অর্জন করে। বাংলাদেশ থেকে অংশগ্রহণকারী ১২ টি দলের মধ্যে চারটি দলই অ্যাওয়ার্ড অর্জন করে।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল-সহ ব্লকচেইন অলিম্পিয়াড বাংলাদেশ এবং টেকনোহেভেন কোম্পানি লিমিটেড যৌথভাবে এর আয়োজন করে। বহুল প্রত্যাশিত এই অলিম্পিয়াড এবারই প্রথম হংকং এর বাইরে বাংলাদেশে আয়োজিত হয়।

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন “আন্তর্জাতিক ব্লকচেইন অলিম্পিয়াড ২০২১” সত্যিই একটি অসাধারণ ইভেন্ট যেখানে সরকার, ইন্ডাস্ট্রি এবং অ্যাকাডেমিয়াসহ সকলের অংশগ্রহণ রয়েছে এবং সকলে একসাথে কাজ করেছে। তিনি বলেন, এই অনুষ্ঠানটি অত্যন্ত সুন্দর ও সফলভাবে আয়োজন করা সম্ভব হয়েছে যা ভবিষ্যতের জন্য একটি অভিজ্ঞতা হিসেবে কাজ করবে।

ব্লকচেইন একপ্রকার ডেটাবেইজ টেকনোলজি যা দৈনন্দিন জীবনে প্রয়োজনীয়তা রয়েছে বলে মন্ত্রী মন্তব্য করেন।

বাণিজ্য মন্ত্রী বলেন, “আমি বিশ্বাস করি যে আন্তর্জাতিক ব্লকচেইন অলিম্পিয়াড এই ধরনের প্রযুক্তির গবেষণা ও বিকাশকে তরুণরা আরো সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। বাংলাদেশ সরকার তরুণদের এই মেধা ও প্রচেষ্টাকে সবসময় সমর্থন করবে।”

বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী ব্লকচেইনের বহুমাত্রিক ব্যবহারের কথা উল্লেখ করে বলেন এই প্রযুক্তি হলো নতুন ধারার ইন্টারনেট। পলক বলেন  এটা প্রতিটি ক্ষেত্রেই ব্যাপক পরিবর্তন আনছে। ফিনটেক, এগ্রিটেক, হেলথটেক, এডুটেক- প্রতিটি ক্ষেত্রে আজ-কাল বা পরশু এই ব্লকচেইন ব্যবহৃত হবে। তাই আমাকে এই প্রযুক্তিকে আলিঙ্গন করতে হবে। সুযোগ কাজে লাগাতে হবে।

তরুণদের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করে পলক বলেন, শিল্পখাতে রূপান্তরের অপারেটিং মডেলে দীর্ঘ মেয়াদে ব্লকচেইন ব্যবহৃত হবে। যেভাবে আমরা ইন্টারনেটে ব্যাপকভিত্তিক তথ্য বিনিময় করি, তেমনি ভ্যালুচেঞ্জ, মালিকানা হস্তান্তর এবং লেনদেন যাচাইয়ে ব্লকচেইন ব্যবহৃত হবে। এর মাধ্যমেই বোঝা যাচ্ছে ব্লকচেইন প্রযুক্তি কতটতা গুরুত্বপূর্ণ।

তিনি বলেন আমাদের শিল্প খাতের প্রতিটি ক্ষেত্রেই এই প্রযুক্তি ব্যবহৃত হবে। তাই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারীদের প্রতি আমার আহ্বান,পুঁজিবাজার, অর্থমন্ত্রণালয়সহ দেশের বেসকারি খাতকেও এই প্রযুক্তিতে সংযুক্ত করার উপর গুরুত্বারোপ করেন।

বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি) এর নির্বাহী পরিচালক সচিব ড. মোঃ আব্দুল মান্নানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্য বক্তব্য রাখেন আইসিটি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম, বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনার ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়  অধ্যাপক মোহাম্মদ কায়কোবাদ, “আন্তর্জাতিক ব্লকচেইন অলিম্পিয়াড ২০২১” এর চেয়ারম্যান এবং টেকনোহ্যাভেন কোম্পানি লিমিটেড এর  সিইও হাবিবুল্লাহ এন করিম।  অনলাইনে সংযুক্ত হয়ে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন হংকং ব্লকচেইন সোসাইটির প্রেসিডেন্ট ড. লরেন্স মা এবং ব্লকচেইন সোসাইটির ডেভিড সিজেল।

পরে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী আনুষ্ঠানিকভাবে “আন্তর্জাতিক ব্লকচেইন অলিম্পিয়াড ২০২১” এর বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার তুলে দেন।  বিজয়ীদের জন্য সর্বমোট ৪০,০০০ মার্কিন ডলারেরও বেশি মূল্যের পুরস্কার প্রদান করা হয়।

এই প্রতিযোগিতায় মোট ১২ টি দেশ অংশগ্রহণ করে।