Spread the love

বাংলাদেশ থেকে নির্বাচিত শিক্ষার্থীরা অংশ নেবে ওয়ার্ল্ড রোবট অলিম্পিয়াডে 

 

 

ঢাকা ৮ অক্টোবর ২০২১:

 

দেশের স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের মধ্যে রোবটিক্স চর্চাকে জনপ্রিয় করতে,চতুর্থ শিল্পবিপ্লব মোকাবেলায় একটি প্রশিক্ষিত প্রজন্ম তৈরী এবং দেশের নবীন শিক্ষার্থীদের রোবট নিয়ে আরও বেশি কাজ করার সুযোগ সৃষ্টি করার উদ্দেশ্য নিয়েই দেশে অনুষ্ঠিত হল “ওয়ার্ল্ড রোবট অলিম্পিয়াড বাংলাদেশ ২০২১ ” এর জাতীয় পর্ব।

এ অলিম্পিয়াডের বাংলাদেশ পর্বের আয়োজক বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্ক (বিডিওএসএন)। এশিয়া থেকে বাংলাদেশ ডব্লিউআরও’র ২৫তম সদস্য দেশ এবং বৈশ্বিকভাবে ৮৪তম সহযোগী দেশ হিসেবে এই আয়োজনে যুক্ত হয়েছে। বাংলাদেশ পর্বের বিজয়ীদের থেকে নির্বাচিত শিক্ষার্থীরা ওয়ার্ল্ড রোবট অলিম্পিয়াডের অন্তর্জাতিক পর্বে অংশ নেবে।

 আজ  ৮ অক্টোবর ২০২১ইং তারিখে আনুষ্ঠানিকভাবে এই অলিম্পিয়াডের জাতীয় পর্বের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট লেখক ও শিক্ষাবিদ অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল। অতিথি হিসেবে শুভেচ্ছা বক্তব্য প্রদান করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রোবটিক্স অ্যান্ড মেকাট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক লাফিফা জামাল,ক্লাউডক্যাম্প বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা মোহাম্মদ এম জামান,স্পেস ইনোভেশন ক্যাম্প এর ক্রু চিফ আরিফুল হাসান অপু,ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি অফ বাংলাদেশের সহযোগী অধ্যাপক কাজী হাসান রবিন এবং প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটি, চট্রগ্রামের তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক প্রকৌশল বিভাগের সহকারি অধ্যাপক মোহাম্মদ সাইফুদ্দীন মুন্না।

বাংলাদেশের জন্য আজকের দিনটাকে একটা মেইলফলক উল্লেখ করে ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল বলেন,“আমাদের নতুন প্রজন্মের হাতেই আগামীর বাংলাদেশ। গণিত অলিম্পিয়াড থেকে শুরু করে আমাদের দেশের শিক্ষার্থীদের জন্য যে নতুন অধ্যায়ের সূচনা হয়েছিল, আজকের অলিম্পিয়াড সেই অধ্যায়ে নতুন পালক যুক্ত করছে।” পাশাপাশি পুরস্কার পাওয়া না পাওয়া নিয়ে কোন রকম চিন্তা না করে সবাইকে এ অলিম্পিয়াডে অংশ নেয়ার জন্য অভিনন্দন জানান তিনি। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্কের সাধারন সম্পাদক জনাব মুনির হাসান।

উল্লেখ্য, ৮ থেকে ২০ বছর বয়সী বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরা ২০২১ সাল থেকে ওয়ার্ল্ড রোবট অলিম্পিয়াডে (ডব্লিউআরও) অংশ নিতে পারবে। ডব্লিউআরও এর বাংলাদেশ পর্বে ওপেন এবং ফিউচার ইঞ্জিনিয়ার্স  এই ২টি  ক্যাটাগরিতে প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।

এ বছরের অলিম্পিয়াডের থিম পাওয়ার বটস – দ্যা ফিউচার অফ এনার্জি। অংশগ্রহণকারীদেরকে এই থিমের উপর ভিত্তি করে রোবট বানিয়ে প্রদর্শন করে। এ অলিম্পিয়াডে অংশগ্রহণে  বয়সের ক্যাটাগরিগুলো যথাক্রমে ৮-১২,১১-১৫ এবং ১৪-১৯ বছর।

তবে করোনা মহামারীর কারনে ২০২০ সালের ডব্লিউআরও এর আন্তর্জাতিক পর্ব অনুষ্ঠিত না হওয়ায় শুধুমাত্র এ বছরের জন্য ২০ বছর বয়সীরা অংশগ্রহণের সুযোগ পাচ্ছে। বিগত ১৫ বছরে বিভিন্ন দেশে এ আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতাটি অনুষ্ঠিত হয়েছে। সর্বশেষ প্রতিযোগিতায় বিশ্বব্যাপী ৭০ হাজারের অধিক জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক প্রতিযোগী অংশগ্রহণ করেছিল।

তাছাড়া ৩০ এর অধিক দেশ থেকে নির্বাচিত এবং মনোনীত আন্তর্জাতিক বিচারক প্যানেলও ছিলেন। বাংলাদেশ পর্বের বিজয়ীদের থেকে নির্বাচিত শিক্ষার্থীরা অনলাইনে অনুষ্ঠেয় ১৭ তম ওয়ার্ল্ড রোবট অলিম্পিয়াডে অংশ নেবে।  বিডিওএসএন ডব্লিউআরও এর পক্ষে বাংলাদেশে জাতীয় প্রতিযোগিতা আয়োজন করছে  এবং এখান  থেকে চূড়ান্তভাবে বাছাইকৃতদের আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশের প্রতিনিধি করে পাঠানো হবে।

ওয়ার্ল্ড রোবট অলিম্পিয়াড বা ডব্লিউআরও ২০০৪ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়,যার সদর দপ্তর সিংগাপুরে। এ বছরে আগামী ১৮ নভেম্বর থেকে ২১ নভেম্বর তারিখে আন্তর্জাতিক পর্ব ডব্লিউআরও এর সদর দপ্তর থেকে অনলাইনে নিয়ন্ত্রীত হবে।