গ্রাহক সেবা বৃদ্ধিকল্পে সঞ্চালন ও বিতরণ ব্যবস্থার আধুনিকায়নে গৃহীত পদক্ষেপ দ্রুত বাস্তবায়ন করা প্রয়োজন: বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা, ২৭ পৌষ (১১ জানুয়ারি) :

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, গ্রাহক সেবা বৃদ্ধিকল্পে সঞ্চালন ও বিতরণ ব্যবস্থার আধুনিকায়নে গৃহীত পদক্ষেপ দ্রুত বাস্তবায়ন করা প্রয়োজন। দক্ষতা বাড়ানোর কোনো বিকল্প নেই। দায়িত্ববোধের প্রতি আন্তরিক হলে সকল সমস্যাই দ্রুত সমাধান করা সম্ভব।

প্রতিমন্ত্রী আজ অনলাইনে ‘গত ১৭ নভেম্বর ২০২০ তারিখ সিলেটের কুমারগাঁও ১৩২/৩৩ কেভি গ্রিড উপকেন্দ্রে সংঘটিত অগ্নিকান্ডের বিষয়ে গঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন’ উপস্থাপনকালে এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, প্রতিটি গ্রিড বা বিদ্যুৎ কেন্দ্রের সাইবার সিকিউরিটি ও ফিজিক্যাল সিকিউরিটি নিশ্চিত করতে প্রদত্ত নির্দেশনা অনুসরণ করা প্রয়োজন।

১৭ নভেম্বর ২০২০ তারিখে সিলেটের কুমারগাঁও ১৩২/৩৩ কেভি গ্রিড উপকেন্দ্রে সংঘটিত অগ্নিকান্ডের বিষয়ে গঠিত তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক বিদ্যুৎ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব রহমত উল্লাহ্ মোঃ দস্তগীর, এনডিসি, তদন্ত প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন। প্রতিবেদনে এককভাবে কাউকে দায়ী না করলেও ১৯৬৭ সালে স্থাপিত উপকেন্দ্রটির প্রয়োজনীয় উন্নয়ন ও আধুনিকায়ন না করা এবং কর্তৃপক্ষের সঠিক পরিকল্পনা ও যথাযথ ব্যবস্থাপনার অভাব রয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

দাখিলকৃত প্রতিবেদনে নিম্নোক্ত সুপারিশ করা হয়-

পিজিসিবির নিয়ন্ত্রণাধীন ১৩২/৩৩ কেভি গ্রিড উপকেন্দ্রের ইকুইপমেন্টস এর কন্ট্রোল ও প্রটেকশনের জন্য ডিসি সিস্টেম (ডিসি সোর্স ব্যাটারি, চার্জার ও ডিস্ট্রিবিউশন প্যানেল) এবং বিউবোর নিয়ন্ত্রাধীন ৩৩ কেভি বাস ও ইকুইপমেন্টস এর কন্ট্রোল ও প্রটেকশনের জন্য ডিসি সিস্টেম  জরুরিভিত্তিতে সম্পূর্ণ পৃথক করা, ক্লোজ সার্কিট টেলিভিশন (সিসিটিভি) স্থাপন করা, জরুরি ভিত্তিতে গ্রাউন্ডিং সিস্টেম বৃদ্ধিপূর্বক যথাযথমানে উন্নয়ন ও সম্প্রসারণ করা, ভূগর্ভস্থ কন্ট্রোল ক্যাবলিং সিস্টেম জরুরি ভিত্তিতে সংস্কার করা, ফল্ট লেভেল নিয়ন্ত্রণের লক্ষ্যে ১৩২ কেভি ও ৩৩ কেভিতে প্যারালালে সংযুক্ত পাওয়ার ট্রান্সফরমারগুলো জরুরিভিত্তিতে পৃথক করা, পাওয়ার ট্রান্সফরমার, কারেন্ট ট্রান্সফরমার, পটেনশিয়াল ট্রান্সফরমার, সার্কিট ব্রেকার ইত্যাদি অতি গুরুত্বপূর্ণ ইকুপমেন্টসমূহ উচ্চ গুণগতমান সম্পন্ন হওয়া, তৃতীয় পক্ষের মাধ্যমে দক্ষ কারিগরি জনবল দ্বারা দেশের সকল গ্রিড উপকেন্দ্র ইন্সপেকশনের ব্যবস্থা করা, উপকেন্দ্রের সংরক্ষণ কাজগুলো যথাযথভাবে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে তদারকি আরো জোরদার করা, উপকেন্দ্রের পরিচালন ও সংরক্ষণ কাজগুলি সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার জন্য পিজিসিবি ও বিউবো কর্তৃক পৃথকভাবে জনবল পদায়ন করা এবং প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে দক্ষ জনবল সৃষ্টির ব্যবস্থা করা, গ্রিড উপকেন্দ্রের গুরুত্বপূর্ণ Equipment (Transformer, CT/PT, Circuit Breaker, Isolatfors, Lighting Arresters, Battery I Battery Charger ইত্যাদি) সমূহ নিয়মিত পরীক্ষা ও সংরক্ষণের ব্যবস্থা করা এবং এসকল যন্ত্রপাতির জন্য ইতিহাস বই (History Book) সংরক্ষণ করা, জরুরিভিত্তিতে কুমারগাঁও ১৩২/৩৩কেভি গ্রিড উপকেন্দ্রের বিকল্প সোর্স তৈরি করা।

ভার্চুয়াল এই সভায় অন্যান্যের মাঝে বিদ্যুৎ সচিব মোঃ হাবিবুর রহমান, পিডিবি’র চেয়ারম্যান প্রকৌশলী বেলায়েত হোসেন, পাওয়ার সেলের মহাপরিচালক মোহাম্মদ হোসাইন ও পিজিসিবির ব্যবস্থাপনা পরিচালক গোলাম কিবরিয়া উপস্থিত ছিলেন।