যারা নির্বোধ তারা ৭ মার্চের ভাষণের মর্ম বুঝবেনা: প্রধানমন্ত্রী 

ঢাকা, ০৮ মার্চ ২০২১:

৭ মার্চ উপলক্ষে আওয়ামী লীগের আলোচনা সভায় প্রধানমন্ত্রী বলেন, যারা নির্বোধ তারা ৭ মার্চের ভাষণের মর্ম বুঝবেনা, পাকিস্তানী হানাদাররাও বোঝেনি।

স্বাধীনতা যুদ্ধে জিয়াউর রহমানের বিতর্কিত ভূমিকার সমালোচনা করেন প্রধানমন্ত্রী। ভাষণ নিয়ে সমালোচনাকে গুরুত্ব না দিয়ে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নিয়ে দেশ গঠনে ভূমিকা রাখতে সকলের প্রতি আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন: বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণের পর যারা রাস্তায় ব্যারিকেড সৃষ্টি করেছিলো তাদের ওপর গুলি চালায় জিয়াউর রহমান।

২৫ মার্চ চট্টগ্রামে যারা ব্যারিকেড দিচ্ছিল তাদের অনেককে জিয়াউর রহমান গুলি করে হত্যা করেন। শুধু তাই নয়, জিয়া ২৫ ও ২৬ দুই দিনই হত্যাকাণ্ড চালান। ২৭ তারিখ সোয়াত জাহাজ থেকে অস্ত্র নামাতে গিয়েছিলেন জিয়া। তিনি যাতে অস্ত্র নামাতে না পারেন, আমাদের স্বাধীনতাকামীরা তাকে আটকান। বলছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আজ সোমবার (৮ মার্চ) আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ৭ মার্চ উপলক্ষে আয়োজিত দলটির আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হন প্রধানমন্ত্রী।

বঙ্গবন্ধু কন্যা বলেন: জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণে বাঙ্গালীর হাজার বছরের বঞ্চণা, শোষন, অবহেলার ইতিহাস যেমন বলেছিলেন তেমনি পাকিস্তানী শাষকদের বিরুদ্ধে কিভাবে গেরিলাযুদ্ধের প্রস্তুতি নিতে হবে, সে কর্মপরিকল্পনাও বলে দিয়েছিলেন। রাজনীতির কবি বঙ্গবন্ধুর এ ভাষণ ছিলো স্বাধীনতার প্রামাণ্য দলিল।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘সেদিন চট্টগ্রামের হান্নান সাহেব গংরা ঘোষণা দিয়েছিলেন। তখন জহুর আহমেদ চৌধুরী সাহেব বলেছিলেন, আমরা তো ঘোষণা দিয়েই যাচ্ছি। সেনাবাহিনীর একজনকে এনে ঘোষণা দিলে একটা যুদ্ধ যুদ্ধ ভাব থাকবে। ওই সময় মেজর রফিক সাহেব অ্যাম্বুশ (আক্রমণ) করে বসেছিলেন।

সে সময় তিনি বলেছিলেন, যদি আমি এখান থেকে সরে যাই পাকিস্তানিরা জায়গাটা দখল করে নেবে। ফলে জিয়াউর রহমান যেহেতু জনগণের কাছে ধরা ছিলেন, তাকে ধরে নিয়ে এসে ঘোষণা পাঠ করতে বলা হয়। সেই থেকে তাকে ঘোষক বলে প্রচার চালায়। কিন্তু তিনি (জিয়াউর রহমান) যে ২৫ ও ২৬ মার্চ মানুষ হত্যা করেছেন, সে কথা ভুলে যায়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতাকে হত্যা করে অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করেছেনযেই জিয়া, সেই জিয়ার দলের নেতারা ৭ মার্চের ভাষণের মর্ম বুঝবে না, এটাই স্বাভাবিক। সুতরাং ধরেই নিতে হবে তারা তাদের পুরোনো প্রভুদের ভুলে যায়নি। তাদের পালিত দল হিসেবে তারা এখনও আছে।