নিজস্ব প্রতিবেদকঃ নরসিংদীর মনোহরদীতে পাওনা টাকা চাওয়ায় মাদরাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি দলবল নিয়ে দপ্তরির ওপর হামলা করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে মারাত্মক আহত দপ্তরি সাইফুল ইসলাম মনোহরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছেন। গত শুক্রবার মনোহরদী দক্ষিণপাড়া জামে মসজিদে জুমআর নামাজ শেষে বাড়ী ফেরার সময় এই হামলার ঘটনা ঘটে।

আহত সাইফুল মনোহরদী দক্ষিণপাড়া গ্রামের রজব আলীর ছেলে। তিনি মনোহরদী দারুল ইসলাম দাখিল মাদরাসায় দপ্তরি পদে কর্মরত। হামলায় নেতৃত্বদানকারী মো. সামসুদ্দিন একই মাদরাসার প্রতিষ্ঠাতা এবং পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি। এ ঘটনায় মনোহরদী থানায় মামলা দায়েরের পর দুই আসামীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। অভিযোগে জানা যায়, কয়েক মাস আগে দপ্তরি সাইফুল ইসলামের কাছ থেকে নির্দিষ্ট সময়ের জন্য ২০ হাজার টাকা ধার নেন মাদরাসার সভাপতি মো. সামসুদ্দিন। নির্ধারিত সময় পাড় হলে ধারের টাকা ফেরত চান সাইফুল। এতে সামসু্িদ্দন নানা অজুহাতে সময়ক্ষেপণ করতে থাকেন। সম্প্রতি টাকা চাওয়া হলে সাইফুলকে বিভিন্নভাবে হুমকী দিতে থাকেন সামসুদ্দিন।

এ সম্পর্কে গত শুক্রবার জুমআর নামাজ শেষে মুসল্লিদের কাছে মৌখিকভাবে অবগত করেন সাইফুল। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে বাড়ী ফেরার সময় সামসুদ্দিন, তার ছেলে তৌহিদুর রহমান, ভাই আলাউদ্দিন, ভাতিজা তোফায়েল দেশিয় অস্র নিয়ে রাস্তায় ফেলে সাইফুলকে বেদম মারপিট করে। মারধরে সে মারাত্মক আহতাবস্থায় চিৎকার করতে থাকলে আশপাশের লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে মনোহরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। মনোহরদী থানা ওসি মো. মনিরুজ্জামান  বলেন , এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। পুলিশ ঐদিনই দুই আসামীকে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছেন।